শিরোনাম
সিলেট পরিবেশ অধিদপ্তর অফিসের অনিয়মে নাজেহাল সাধারণ নাগরিকরা, সচেতন নাগরিক ফোরামের মানববন্ধন নবীগঞ্জ থানার ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা আটক ৮ সিলেটে ৩ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ডিজিটাল সুরক্ষা-নিরাপত্তা শীর্ষক কর্মশালা ও ইফতার অসুস্থ আলহাজ্ব সৈয়দ মকবুল হোসেন মাখন মিয়ার শয্যাপাশে সদর দক্ষিণ নাগরিক কমিটি’র নেতৃবৃন্দ লাইফ সাইন্স মেডিকেল টেকনোলজি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট এর উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়েছে কক্সবাজারে সামরাই খাল উদ্ধারে পরিবেশবাদী সংগঠনের মানববন্ধন ও বিশ্ব পানি দিবস পালিত চৈত্রের বৃষ্টি, আমের জন্য আশীর্বাদ না অভিশাপ ভারতীয় চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী রানী মুখার্জীর শুভ জন্মদিন আজ মা’গো———- ওও —————মা’গো নবীগঞ্জে বাগাউড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ জসিম উদ্দিন (সেলিম) এর দুর্নীতি অনিয়মের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের নির্দেশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের
বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন

দোয়ারাবাজারে ইউপি চেয়ারম্যানের নুর উদ্দিন আহমদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশের সময় : বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
নূরউদ্দিন আহমদ

বিজ্ঞাপন

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূরউদ্দিন আহমদ। একের পর এক দূর্নীতির অভিযোগে আলোচনায় আসেন তিনি।

একই কাজে দুই প্রকল্প দেখিয়ে সরকারি বিল উত্তোলন, সরকারি চাল পাচারে অভিযুক্ত হয়ে জেল কাটা,প্রশাসনের নির্দেশনা উপেক্ষা করে উচ্ছেদ অভিযান নামে নিজের দলবল, লাঠিয়াল দিয়ে নিরিহ মানুষদের দোকানপাট ভাঙচুর,জায়গা দখল,ইউপি সদস্যদের বেতন ভাতা বন্ধ,অনিয়ম দূর্নীতি এবং একাধিক তুঘলকি কাণ্ড ঘটিয়ে বেশ আলোচানায় থাকেন ইউপি চেয়ারম্যান নুর উদ্দিন আহমদ। এবার স্থানীয় নরসিংপুর বাজারে ২ কাজে ৪ প্রকল্পের আবেদনের ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে,চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি নরসিংপুর বাজারের তোফা বাজার ও তোফা বাজার নামক জায়গায় দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করে আসা নিরিহ দোকানিদের ঘর ভেঙ্গে দিয়ে জোরপূর্বক জায়গা নিজের দখল নিয়ে চেয়ারম্যান নুর উদ্দিন আহমদ অবৈধ ভাবে স্থাপনা নির্মানের পায়তারা করে আসছিলেন। এবিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন শিরোনামে পত্র -পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হলে দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) গিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়।

এসময় প্রশাসনের নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে প্রশাসনের সামনেই সশস্ত্র মহরায় ক্ষমতার দাপড় দেখিয়ে আরো অসংখ্য দোকান ঘর ভাঙ্গচুর শুরু করতে ও সংঘর্ষে জড়ালে ইউপি চেয়ারম্যানের পক্ষের ৫ জনকে মোবাইল কোর্টে আটক করে এসিল্যান্ড অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ৬০ হাজার টাকা জরিমান দিয়ে ছাড়া পায় তারা।

পরবর্তীতে একাধিক দোকানি বাদী হয়ে মামলা মোকদ্দমা করেন। দীর্ঘদিন এনিয়ে মামলা মোকদ্দমা চলার একপর্যায়ে মার্চ মাসে দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাজার সক্রান্ত বিষয়ে উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় ইউপি চেয়ারম্যানের ভাঙ্গচুরের ন্যক্কারজনক এমন কর্মকান্ডের বিষয়ে তুলে দরেন ও তোফা বাজার নামক স্থানটিতে ফ্লোর ঢালাই করে ধানহাটা করার প্রস্তাবনা করেন।

সর্বসম্মতিক্রমে পরবর্তী সভায় (২৭ এপ্রিল) গৃহীত হয় এবং তোফা বাজার নামক জায়গাটি ফ্লোর ঢালাই করে স্থায়ী ভাবে ধানহাটা করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় উপজেলা পরিষদ। একই সাথে তোফা বাজার অংশ ধানহাটা হিসেবে ব্যবহার করার জন্য বলা হয়। যদিও তোফা বাজারে কোন ঘর নির্মান না করতে উপজেলা প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এর পর ও ইউপি চেয়ারম্যান নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে জোরপূর্বক দালান কোটা নির্মান করতে পায়তারা করে আসছে।

তোফা বাজার ও ধান বাজার হিসেবে ব্যবহার করতে ফ্লোর ঢালাইয়ের প্রকল্প অনুমোদন হওয়ার পর ও মে মাসের ২৪ তারিখে মাসিক সমন্বয় সভায় নরসিংপুর বাজারের তোফা বাজার ও ধান বাজার নামক জায়গাটিতে সেড ঘর নির্মানের জন্য ৭লক্ষ ৪৮ হাজার ১০২ টাকা বরাদ্দ চেয়ে দ্বিতীয় প্রকল্পের আবদেন করে। এদিকে,গত বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি নরসিংপুর বাজারের মাছ ও সবজি বাজার নামক জায়গায় চেয়ারম্যান জোরপূর্বক কয়েকজন ব্যবসায়ীর দোকানঘর ভাঙ্গচুর করে জায়গা দখল করে কাঁচা বাজার,ফিশসেড ও শুটকি সেডের ঘর নির্মান করে ।

এবিষয়ে আব্দুল মতিনসহ ক্ষতিগ্রস্ত কয়েকজন ব্যবসায়ী বাদী হয়ে লিখিত অভিযোগ ও করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান নুর উদ্দিন আহমদের বিরুদ্ধে। প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দখলকৃত জায়গায় চলতি বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি ফিশসেড,মাংস সেড,শুটকি সেড ও সবজি সেড ঘর নির্মানপূর্বক অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করে ইউপি চেয়ারম্যান নুর উদ্দিন আহমদ (যার ভিডিও ফুটে সংগৃহীত রয়েছে)।

সরকারি অর্থ আত্মসাৎ করতে ৭ ফেব্রুয়ারিতে কাজ সম্পন্ন করা ও আনুষ্ঠানিক উদ্ভোধন করা উপরোল্লিখিত সেডঘর গুলো নির্মান করতে পুনরায় ৩ লক্ষ ২৯ হাজার ৬৫০ টাকা বরাদ্দের প্রকল্পের আবেদন করে দূর্নীতিবাজ এই ইউপি চেয়ারম্যান (সেড ঘরে বর্তমানে দোকান চলমান রয়েছে) সর্বশেষ, চলতি বছরের ২৪ আগষ্ট নরসিংপুর বাজারে একটি চাউলের দোকান ও লাইব্রেরির দোকানঘর ভাঙ্গচুর করে দোকান থেকে ৫০ বস্তা চালসহ লাইব্রেরির মালামাল লুঠপাঠ করে প্রায় ৯লক্ষ টাকা ক্ষতিসাধান ও দোকানঘরের জায়গা দখলের অভিযোগ এনে চেয়ারম্যান নুর উদ্দিন আহমদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী ছাতক উপজেলার সিঙ্গেরকাছ গ্রামের বাসিন্দা কামাল হোসেন।

এর আগেও চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে নিজের ক্ষমতার দাপড় দেখিয়ে নরসিংবাজারের নিরিহ মানুষদের ২৬ টি দোকান ঘর ভাঙ্গচুর করে প্রায় ২ কোটি টাকার সম্পত্তি দখল। ইউপি সদস্যের অজান্তেই প্রকল্প বাস্তবায়ন,একই প্রকল্পে ২ অর্থ বছরে ২ বিল উঠিয়ে প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) লিখিত অভিযোগ করেছেন ইউপি সদস্যগণ।

অনিয়ম দূর্নীতি ও অবৈধ দখলের এ বিষয় গুলো নিয়ে আদালতে একাধিক মামলা মোকদ্দমা চলমান রয়েছে। এছাড়া উচ্ছেদ অভিযান নামে বিভিন্ন সভা সমাবেশ ও দোকানঘর ভাঙ্গচুর করতে ব্যপরোয়া হয়ে উঠেছে এই ইউপি চেয়ারম্যান। তবুও নিরব ভূমিকা পালন করছে স্থানীয় প্রশাসন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, লুঠপাট,আর অবৈধ জায়গা দখলের অভিযোগ গুলো আড়াল করতেই নরসিংপুর বাজারের তোফা বাজার ফ্লোর ঢালাইয়ের পরিবর্তে সেড ঘর নির্মানে বরাদ্দ চেয়ে প্রকল্পের আবেদন। এক বছর আগে নির্মানপূর্বক উদ্ভোধন করা সবজি বাজার,মাছ বাজার ও শুটকি বাজারের তথ্য গোঁপন করে আবার (দ্বিতীয় বার) সেড ঘর নির্মান করতে বরাদ্দ চেয়ে প্রকল্পের আবেদন।

উচ্ছেদঅভিযান নামে জোরপূর্বক দোকানঘর ভাঙ্গচুর।এক কাজে একাধিক আর ভুল প্রকল্প দেখিয়ে সরকারি টাকা আত্মসাতের চেষ্টায় পায়তারায় লিপ্ত রয়েছে ইউপি চেয়ারম্যান।

এবিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান নুর উদ্দিন আহমদ বলেন, সব অভিযোগ মিথ্যা। জনগনের স্বার্থেই আমি কাজ করছি। দোয়ারাবাজার উপজেলা এলজিএইডি কর্মকর্তা আব্দুল হামিদ জানান,আমি নতুন তাই নরসিংপুর বাজার সম্পর্কে এখনো পুরোপুরি জানা হয়নি।

দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ভারপ্রাপ্ত দায়িত্বে থাকা উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ফজলে রাব্বানী চৌধুরী জানান৷,চেয়ারম্যান কোন উচ্ছেদ অভিযান করতে পারেনা বিষয়টি দেখা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ