শিরোনাম
ওসমানী বিমানবন্দরে ফ্লাইট ওঠানামা স্বাভাবিক, গুজব ছড়ানো থেকে বিরত থাকার আহবান জগন্নাথপুরে বিয়ের প্রলোভনে যুবতীকে ধর্ষন, আদালতে মামলা দায়ের মনোহরদীতে উপজেলা সেচ্ছাসেবী পরিষদের অর্থায়নে অসহায় পরিবারের হাতে নির্মাণাধীন ঘরের চাবি হস্তান্তর নবীগঞ্জের ইনাতগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী ও কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক ইজাজুল রহমানের উপর সন্ত্রাসী হামলার মামলায় গ্রেফতার ২ পলাতক ৩ ভোজ্যতেলের বাজারজাতকরণের সচেতনতা বৃদ্ধিতে সিলেটে ক্যাব এর মানববন্ধন। রেজান আলীর প্রতারণার ফাঁদে বালাগঞ্জের ফারুক মিয়া ওমরাহ থেকে ফেরার সময় নির্ধারণ করে দিল সৌদি আরব সিলেট পরিবেশ অধিদপ্তর অফিসের অনিয়মে নাজেহাল সাধারণ নাগরিকরা, সচেতন নাগরিক ফোরামের মানববন্ধন নবীগঞ্জ থানার ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা আটক ৮ সিলেটে ৩ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ডিজিটাল সুরক্ষা-নিরাপত্তা শীর্ষক কর্মশালা ও ইফতার
বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন

মিথ্যা জবানবন্দি দিয়ে রিপন হত্যা মামলায় আমার ছেলেকে ফাঁসানো হয়েছে

রিপোটারের নাম
প্রকাশের সময় : শনিবার, ৩ অক্টোবর, ২০২০
সংবাদ সম্মেলন
সংবাদ সম্মেলন

বিজ্ঞাপন

আদালতে মিথ্যা জবানবন্দি দিয়ে ছেলে সাগরকে ‘রিপন হত্যা’র ঘটনায় ফাঁসানোর অভিযোগ করেছেন রিনা বগেম নামে একে নারী। শনিবার দুপুরে সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এ অভিযোগ করেন। রীনা বেগম দক্ষিণ সুরমা উপজেলার বরইকান্দি এলাকার শফিক আহমদের স্ত্রী।

লিখিতি বক্তব্যে রিনা বগেম বলেন, চলতি বছরের ১০ জুলাই ইজাজুল ইসলাম ও মো. রেজোয়ান হোসেন রিমুর নেতৃত্বে বাবনা পয়েন্ট এলাকায় কয়েকজন সন্ত্রাসী মিলে ট্যাংক-লরী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. ইকবাল হোসেন রিপনকে কুপিয়ে হত্যা করে

এ ঘটনায় রিমু আমার ছেলে সাগরকে ফাঁসাতে আদালতে মিথ্যা জবানবন্দি দিয়েছে। অথচ বরইকান্দি এলাকায় সবসময় এলাকা ভিত্তিক মারামারির ঘটনা ঘটার কারণে এবং এসব থেকে রক্ষার জন্য বড় ছেলে সাওয়াল হোসেন সাগরকে আমি আমার চাচার বাসায় শিবগঞ্জে রাখি। গত রমজান মাসে তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে ইজাজুল ইসলাম ও মো. রেজোয়ান হোসেন রিমুর সহিত আমার বড় ছেলের কথা কাটাকাটি হয়। বিষয়টি জানার পর সাগরকে আমার চাচার বাসায় পাঠিয়ে দেই।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় ক্ষেপে গিয়ে ট্যাংক-লরী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. ইকবাল হোসেন রিপন হত্যা মামলার অন্যতম আসামি মো. রেজোয়ান হোসেন রিমুকে পুলিশ রিমান্ডে নিলে সে আমার নিরাপরাধ ছেলেকে খুনের মামলায় ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে তার জবানবন্দিতে আমার ছেলের নাম (সাগর) জড়িয়ে মিথ্যা স্টেইটমেন্ট দেয়। এসব তথ্য যাচাই বাচাই না করেই পুলিশ একাধিকবার আমার বাসায় অভিযান করে আমার ছেলেকে ধরার জন্য। অথচ ঘটনার দিন ওই সময়ে আমার ছেলে তার নানার বাসায় ছিল। পুলিশ ইচ্ছে করলেই ঘটনার দিন ও তারিখে আমার ছেলের ব্যবহৃতত মোবাইল ফোনের কললিষ্ট যাচাই করলেই আসল সত্য জানা সম্ভব হবে।তিনি বলেন, আসামি ইজাজুল ও রিমু পূর্ব শত্রুতার জেরে ইচ্ছে করেই আদালতে আমার ছেলের নামে মিথ্যা জবানবন্দি দিয়েছে। আমার ছেলে এ ঘটনার সঙ্গে কোনোভাবেই জড়িত নয়। মামলার বাদী এবং সাক্ষীরাও আমাকে এ বিষয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ